Coxs Bazar News Today
ঢাকারবিবার , ২৮ মে ২০২৩
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. কক্সবাজার
  5. খেলাধুলা
  6. গ্রিস
  7. চট্টগ্রাম
  8. জলবায়ু
  9. জাতীয়
  10. তথ্যপ্রযুক্তি
  11. ধর্মীয়
  12. প্রবাস
  13. বিনোদন
  14. যুক্তরাষ্ট্র
  15. রাজনীতি

নির্ভয় ও পরিবেশ বান্ধব বরিশাল গড়ার প্রত্যয়ে গণসংহতি আন্দোলনের সম্মেলন

তানজিল হোসেন, বরিশাল
মে ২৮, ২০২৩ ৯:২১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নির্ভয় ও পরিবেশ বান্ধব বরিশাল গড়ার প্রত্যয়ে গণসংহতি আন্দোলনের ১ম সম্মেলন অনুষ্ঠিত।
গতকাল ২৭ মে রোজ ( শনিবার ) বিকেল ৩: ৩০ মিনিটে নগরীর অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল জেলা কমিটির সংগ্রামী আহ্বায়ক দেওয়ান আবদুর রশিদ নীলু’র সভাপতিত্বে ও ১ম বরিশাল জেলা সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য সচিব সাকিবুল ইসলাম সাফিনের সঞ্চালনায় এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জননেতা জোনায়েদ সাকি এবং সম্মেলন উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ কৃষক- মজুর সংহতি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সহ- সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম আমজাদ হোসেন।এছাড়াও বক্তব্য রাখেন গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলার সমন্বয়কারী হাসান মারুফ রুমি, কেন্দ্রীয় সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য ও বাংলাদেশ বহুমুখী শ্রমজীবী ও হকার সমিতির সভাপতি বাচ্চু ভুঁইয়া, বাংলাদেশ কৃষক- মজুর সংহতির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল আলম, ১ম বরিশাল জেলা সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক আরিফুর রহমান মিরাজ, গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল সদর উপজেলা কমিটির সদস্য সচিব ইয়াসমিন সুলতানা, কড়াপুর ইউনিয়ন কমিটির আহ্বায়ক নূরজাহান বেগম, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন বরিশাল জেলা কমিটির সভাপতি জাবের মোহাম্মদ, সহ-সভাপতি হাছিব আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জননেতা জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘ সারাদেশে সরকার পতনের আন্দোলন দানা বেঁধে উঠেছে। বিরোধী দলগুলো আন্দোলন করছে বর্তমান সরকারের পদত্যাগ, অন্তর্বর্তীকালীন নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচনের জন্য। সংবিধান সংস্কার ও শাসন ব্যবস্থা বদলের কার্যকর আন্দোলন গড়ে উঠতে শুরু করেছে। এই গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামকে সরকার ভয় পাচ্ছে। জনগনের সভা, সমাবেশ করার সাংবিধানিক অধিকারকে আওয়ামী লীগ প্রতিহত করার হুমকি দিচ্ছে। তারা রাজপথে গুন্ডা বাহিনী দিয়ে ফ্যাসিবাদি কায়দায় আন্দোলন দমন করতে চায়৷ আওয়ামী লীগ এখন রাজনৈতিক দল হিসেবে সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে। এখন তারা মিথ্যা প্রচারনাসহ নানা রকম ভয়ভীতি দেখিয়ে সরাসরি পুলিশ ও গুন্ডা বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে জনগণের ওপর সন্ত্রাসী তৎপরতা চালাতে চায়৷ এগুলো হচ্ছে পতনের আগ মুহুর্তের লম্ফঝম্প। এই লম্ফঝম্প বেশিদিন টিকবে না। জনগণ যখন রাজপথ দখলে নিবে এই স্বৈরাচারী শক্তি পালাতে বাধ্য হবে। আমাদেরকে সেই লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে হবে৷’

‘এই স্বৈরাচারী সরকার দেশের ১৪ কোটি মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে দেশকে লুটপাটের স্বর্গরাজ্য পরিনত করেছে৷ ক্ষমতাকে জমিদারি বানিয়ে এমন লুটপাট করেছে যাতে মানুষের জীবনে আজ নাভিশ্বাস উঠেছে। প্রতিদিন মানুষের পকেট কাটা যাচ্ছে । কোন কোন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যর দাম ৩০০ ভাগ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়েছে। এসবের ওপর সরকারের ন্যূনতম কোন নিয়ন্ত্রণ নাই। সরকার নিজেই সিন্ডিকেট করে মানুষের পকেট কেটে ক্ষমতা ছাড়ার আগে পালিয়ে যাওয়ার জন্য কিভাবে বিদেশে টাকা পাচার করা যায় সেই প্রস্তুতি গ্রহন করছে। কাজেই এদের হাতে মানুষের জীবন নিরাপদ নয়। এরা দেশের সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে ফেলছে। তারা নিজের গদি টিকিয়ে রাখতে বাংলাদেশকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। আমরা সেটা হতে দেবে না। আমরা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলে এই সরকারের পতন ও শাসন ব্যবস্থার বদল ঘটিয়ে জনগনের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করবো। বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের বাঁচার অধিকার প্রতিষ্ঠা করবো’।

সভাপতির বক্তব্য দেওয়ান আবদুর রশিদ নীলু বলেন, ‘সারাদেশে পরিচ্ছন্ন পরিবেশ বান্ধব নগীর হিসেবে বরিশালের সুনাম ছিলো। কিন্তু বিগত এক দশকে বরিশালের পরিবেশ, প্রতিবেশ ও রাজনীতি মুখ থুবড়ে পড়েছে৷ সমগ্র দক্ষিণ অঞ্চলের রাজনীতি এক পরিবারকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে। গত কয়েক বছরে নগরীতে ট্যাক্সের নামে নানান কায়দায় জনগণের পকেট কাটা হয়েছ। বিনিময়ে নাগরিক সেবা বৃদ্ধি পায় নি মোটেই। বরিশাল নগরী আজ চাঁদাবাজির নগরীতে পরিনত হয়েছে। নগরীর অধিকাংশ সড়কের বেহাল দশা। খালগুলো দখল হয়ে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে বরিশাল পানিতে তলিয়ে যায়। বরিশালের পরিবহন খাত সম্পূর্ণ সিন্ডিকেটের হাতে বন্দি’।

‘তাই এসব পরিস্থিতি থেকে জনগণ আজ মুক্তি চায়। জনগণ প্রহসনের নির্বাচন দেখতে চায় না। দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে সর্বত্র জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। আমরা জনগনের পক্ষের শক্তি হয়ে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই।আমরা দীর্ঘদিন বরিশালে বিভিন্ন শ্রমজীবী সহ নানান শ্রেনী পেশার মানুষের অধিকার আদায়ে লড়াই করে যাচ্ছি। আগামীতে আমরা আরো বৃহৎ পরিসরে গণমানুষের অধিকার আদায়ে আমরা লড়াই করে গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবো।

উল্লেখ্য, দেওয়ান আবদুর রশিদ নীলু কে সমন্বয়কারী ও আরিফুর রহমান মিরাজকে নির্বাহী সমন্বয়কারী করে ৪ টি পদ খালি রেখে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট বরিশাল জেলা কমিটি ঘোষনা করা হয়।

সিবিএনটুডে/২৮মে/জই/বরিশাল

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।